ব্রাজিল ভুল করেনি!

 রিচার্লিসনময় রাতে ব্রাজিলের জয়। তবুও এই জয় আসেনি সহজে। অপেক্ষা করতে হয়েছে, শেষ-ভাগের খেলা গড়াব্দি পর্যন্ত। ব্রাজিলের সমীকরণ মেলানোটা খুবই সহজ। কেননা তারা তাদের গ্রুপে পেয়েছে ফুটবলীয় পরাশক্তি বিহীন দলগুলো। তাদের থেকে তুলানামূলক অনেক নিচে। তারই প্রেক্ষিতে, গতকাল রাতে সার্বিয়ার বিপক্ষে খেলতে নামে।

রিচার্লসনের গোলের পর উদযাপন | ছবিঃ রয়টার্স

তাদের সেই সার্বিয়ার সাথেই গোল করতে যেন, রীতিমতো ঘাম ঝরাতে হয়েছে। ছোট দলগুলোর কাছে যখন বড় দলগুলো ধরাশায়ী হচ্ছে এই আসরের বিশ্বকাপে। তখনই যেন ব্রাজিলের কাছেও সেইসব হুমকি হয়ে আসে। প্রথমার্ধ শেষেও যখন স্কোরলাইন ০-০ তখনই চিন্তার ভাজ তিতের কপালে।

তৎক্ষনাৎ রিচার্লসন আসেন ভরসার প্রতীক হয়ে। ভিনিসিয়াস জুনিয়রের ডি-বক্সের ভিতরে থেকে শর্ট নেয়া বলটি সার্বিয়ার গোলরক্ষক ফিরিয়ে দিলে,ফিরতি টাচে গোল সমপন্ন করে রিচার্লসন। ৬২ মিনিটে প্রথম গোলের দেখা পায় ব্রাজিল। 

বাইসাইকেল কিকে রিচার্লসন | ছবিঃ রয়টার্স 

তার মিনিট দশেক পরে,আবারও সেই রিচার্লসনই গোল করে বসেন। এবার আর কোন ফিরতি বলে নয়। এবার আকর্ষণীয় গোল করেন। ৭৩ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে বাইসাইকেল কিকে। দুবারই ভিনিসিয়াস গোল করতে সাহায্য করেছে রিচার্লসনকে।


খুরিয়ে খুরিয়ে মাঠ ছাড়ছেন নেইমার | ছবিঃ রয়টার্স

৮০ মিনিটে যখন নেইমারকে উঠিয়ে নেওয়া হয়,তখন  তাকে খোরাতে খোরাতে মাঠ ছাড়তে দেখা দেয়। ডক্টর জানিয়েছে ২/৩ দিন সময় লাগবে,নেইমারের সেরে উঠতে। 

২-০ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল।আর্জেন্টিনা ও জার্মানের খেলোয়াড়রা যেভাবে এশিয়ার ছোটদলগুলোর কাছে ধরাশায়ী হয়েছে,ব্রাজিল সে ভুল করেনি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ